তুষারঝড়ে নাজেহাল জাপান ও যুক্তরাষ্ট্র

মহাসড়কে আটকা হাজার হাজার গাড়ি

দুই শতাধিক সড়ক দুর্ঘটনা, বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন হাজার গ্রাহক * জাপানে অন্ধকারে ১০ হাজার পরিবার
 যুগান্তর ডেস্ক 
১৯ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
ভয়াবহ তুষারঝড়ের কবলে পড়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও জাপান। প্রচণ্ড শীতের সঙ্গে এই তুষারঝড়ে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে।
ছবি: সংগৃহীত

ভয়াবহ তুষারঝড়ের কবলে পড়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও জাপান। প্রচণ্ড শীতের সঙ্গে এই তুষারঝড়ে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে।

ঝড়ে যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে দুর্ভোগের শিকার ৬ কোটির বেশি মানুষ। ১৪ রাজ্যে জারি করা হয়েছে সতর্কতা। অন্তত ৫ জন প্রাণ হারিয়েছে।

এ পর্যন্ত দুই শতাধিক সড়ক দুর্ঘটনার খবর পাওয়া গিয়েছে। বৃহস্পতিবার থেকে দেশটির প্রায় ৭০ হাজার গ্রাহক বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন অবস্থায় রয়েছেন। গত দু’দিনে বাতিল করা হয়েছে ১৫শ’র মতো ফ্লাইট।

এদিকে জাপানের নিগাতা এবং গুনমা অঞ্চলে গত তিন দিন ধরে ভারি তুষারপাতের কারণে বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে প্রায় ১০ হাজারের বেশি পরিবার। দুর্যোগ মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রী ইওশিহিদে সুগা এক জরুরি বৈঠক ডেকেছেন। সিএনএন, বিবিসি

যুক্তরাষ্ট্রে স্থানীয় সময় বুধবার সন্ধ্যা থেকেই শুরু হয় তুষারঝড়। ঘণ্টায় ২ ইঞ্চি পর্যন্ত বরফের স্তূপ জমে রাস্তায়। লাগাতার তুষারপাত ও খারাপ আবহাওয়ায় ঘটতে থাকে সড়ক দুর্ঘটনা। এতে অন্তত ৫ জন মারা গেছে এবং কয়েকজন আহতও হয়েছে।

বুধ এবং বৃহস্পতিবারের ১৩শ’র বেশি ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। নিউইয়র্ক সিটির মেট্রো এলাকাসহ আরও কিছু গণপরিবহন বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। বিপজ্জনক পরিস্থিতির মধ্যে অধিবাসীদের সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে এবং গাড়ি চালাতে নিষেধ করেছে কর্তৃপক্ষ।

নিউইয়র্ক, পেনসিলভানিয়া, মেরিল্যান্ডসহ বেশ কয়েকটি রাজ্যে করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা কেন্দ্রও বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, ৫০টি রাজ্যের অর্ধেকেরও বেশি রাজ্যে তাপমাত্রা হিমাঙ্কের নিচে নেমে গেছে। উইলিয়ামস্পোট অঞ্চলে ২৪.৭ ইঞ্চি বরফের স্তর পড়েছে। বোস্টনে পড়েছে ৯.১ ইঞ্চির স্তর। নিউইয়র্কের বিংহ্যামটনের ৪০ ইঞ্চি বরফের স্তরে ঢাকা পড়েছে।

এদিকে ভারি তুষার ঝড়ের কারণে জাপানে একটি মহাসড়কে দু’দিন ধরে আটকে পড়ে থাকা হাজারের বেশি গাড়ি সরাতে উদ্ধারকর্মীরা জোর চেষ্টা চালাচ্ছেন। কর্তৃপক্ষ কানেতসু এক্সপ্রেসওয়েতে আটকা গাড়িগুলোর চালক এবং যাত্রীদের খাবার, জ্বালানি ও কম্বল সরবরাহ করেছে।

কানেতসু এক্সপ্রেসওয়েটি রাজধানী টোকিওকে উত্তরাঞ্চলীয় নিগাতার সঙ্গে সংযুক্ত করেছে। বুধবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা থেকে জাপানে শুরু হওয়া ভারি তুষারপাতের কারণে এক্সপ্রেসওয়েটির বিভিন্ন অংশে ট্রাফিক জ্যামও দেখা যাচ্ছে।

তুষারপাতে দেশটির উত্তর ও পশ্চিমের বিভিন্ন এলাকার ১০ হাজারেরও বেশি বাড়ি বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়েছে বলেও জানিয়েছে স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো। কিয়োডো নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কানেতসু এক্সপ্রেসওয়েতে গাড়ির একাধিক জট দেখা গেছে।

বুধবার রাতে সড়কটিতে একটি ট্রেইলার আটকা পড়ার পর এই জটের সূত্রপাত হয়। মহাসড়কটি পরিচালনার দায়িত্বে থাকা কর্তৃপক্ষ ও পুলিশের বরাত দিয়ে অন্য এক প্রতিবেদনে এক্সপ্রেসওয়ের এক জায়গায় ১০ মাইল লম্বা জ্যাম লেগে আছে বলে জানানো হয়েছে।

কর্মকর্তারা একটি করে গাড়ি সরানোর চেষ্টা করছেন; যদিও শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত এক্সপ্রেসওয়েটিতে আরও প্রায় হাজার খানেক গাড়ি আটকা অবস্থায় ছিল বলে জানিয়েছে কিয়োডো নিউজ।

‘আমরা গাড়িগুলোর চালক ও যাত্রীদের উদ্ধারে সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি; এ জন্য রাতভর কাজ করতেও প্রস্তুতি আছে আমাদের,’ বৃহস্পতিবার রাতে এমনটাই বলেছিলেন নিগাতার দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের এক কর্মকর্তা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন