পার্লামেন্ট ঘেরাও নৌকায় চড়ে পালালেন এমপিরা

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৯ নভেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ফের বিক্ষোভে উত্তাল থাইল্যান্ড। সরকার ও রাজতন্ত্রের বিরুদ্ধে বেশ কিছুদিন ধরেই বিক্ষোভ চলছে দেশটিতে। এর ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার রাজধানী ব্যাংককে দেশটির পার্লামেন্ট ভবন ঘেরাও করে গণতন্ত্রপন্থী বিক্ষোভকারীরা।

এ সময় নদীর পাশে অবস্থিত পার্লামেন্ট ভবন থেকে এমপিরা নৌকায় স্থান ত্যাগ করেন।

এদিন পার্লামেন্টের বাইরে অবস্থান নেয়া সরকারবিরোধী ও রাজতন্ত্রের অনুসারী দু’পক্ষের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে। পুলিশ তাদের ছত্রভঙ্গ করতে জলকামান ব্যবহার করে।

সাবেক সামরিক শাসকদের তৈরি সংবিধান সংস্কার ও প্রধানমন্ত্রী প্রায়ূত চান-ওচার পদত্যাগ দাবিতে সংসদ অভিমুখে পদযাত্রাকালে বিক্ষোভকারী ও পুলিশের সংঘর্ষে ৫৫ জন আহত হয়েছে।

গত জুলাই থেকে দেশটিতে এসব দাবিতে তরুণদের নেতৃত্বে বিক্ষোভ চলে আসছে। মঙ্গলবার থাইল্যান্ডের সংসদ ভবনের বাইরে বিক্ষোভকারীরা ব্যারিকেড ভাঙার চেষ্টা করলে তাদের ওপর টিয়ারগ্যাস ও জলকামান নিক্ষেপ করে পুলিশ। এ সময় পুলিশের গুলিতেও কয়েকজন আহত হয়েছে।

তবে বিক্ষোভকারীদের ওপর গুলি চালানোর বিষয়টি অস্বীকার করে থাইল্যান্ড পুলিশ জানিয়েছে, এ ঘটনায় গুলি চালানোর বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে।

সংবিধান পরিবর্তন নিয়ে আইনপ্রণেতাদের আলোচনায় বসার ব্যাপারে চাপ দিতে হাজারও বিক্ষোভকারী সংসদের বাইরে জড়ো হয়। তাদের আরও দাবির মধ্যে রয়েছে-দেশটির প্রধানমন্ত্রী প্রায়ূত চান-ওচার পদত্যাগ, সরকার ভেঙে নতুন নির্বাচন ও রাজশাসন সংস্কার।

ব্যারিকেড ভাঙার চেষ্টা করলে বিক্ষোভকীরদের ওপর টিয়ারগ্যাস ও জলকামান নিক্ষেপ করে পুলিশ। ব্যাংককের এরোয়ান মেডিকেল সেন্টার কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, পুলিশ ও বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষে অন্তত ৫৫ জন আহত হয়েছেন।

তাদের মধ্যে ৩২ জন টিয়ারগ্যাসের কারণে ভুগছেন এবং ৬ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। তবে কারা ঘটনাস্থলে কারা আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার করেছে, তা জানা যায়নি।

ঘটনার পর সংবাদ সম্মেলনে ব্যাংকক পুলিশের নির্বাহী প্রধান পিয়া তাভিচাই বলেন, আমরা সংঘর্ষ এড়ানোর চেষ্টা করেছি। সংসদের সামনে থেকে বিক্ষোভকারীদের সরানোর চেষ্টা করেছিল পুলিশ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন