পুরোহিতের হুশিয়ারি

মন্দির ধর্মকর্ম বন্ধে নেপালে ভগবানের গজব আসতে পারে

 যুগান্তর ডেস্ক 
০৩ অক্টোবর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মন্দির ও ধর্মকর্ম বন্ধ করায় নেপালে ভগবানের গজব আসতে পারে। এমনটাই হুশিয়ারি দিয়েছেন দেশটির পুরোহিতরা।

করোনাভাইরাসের কারণে কয়েক মাস ধরে পূজা-অর্চনা করতে না পারায় ক্ষোভ ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন কেউ কেউ। মহামারীর জেরে নেপালের মন্দির ও উপাসনালয়গুলো বন্ধ। মানুষ সমাগম নিষিদ্ধ।

ধর্মীয় অনেক আচার অনুষ্ঠান কমিয়ে আনা হয়েছে। মার্চ থেকে লকডাউন ও বিধিনিষেধ দেয়া হয়েছে। এর ফলে শতাব্দীর প্রাচীন অনেক রীতি মানা সম্ভব হচ্ছে না।

ফলে ধর্মীয় নেতারা কড়া প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন। তাদের কেউ কেউ হুশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, ঐশ্বরিক ক্ষোভ থেকে দেশে বিপর্যয় নেমে আসতে পারে।

বিবিসি জানায়, নেপালে কয়েক সপ্তাহ পরই বড় ধরনের উৎসব দেশাই এবং তিহার। কিন্তু তার আগে এসব বিধিনিষেধ প্রত্যাহার হওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণ বলে জানিয়েছেন দেশটির কর্মকর্তারা।

অক্টোবরে দেশাই এবং নভেম্বরে তিহার উৎসব। কিন্তু সেই উৎসব কীভাবে পালিত হবে তা এখনও পরিষ্কার করে বলা হয়নি।

নেপালে মূলত হিন্দু ও বৌদ্ধ সংস্কৃতি এবং জীবনধারার প্রাধান্য। তবে করোনা মহামারীতে খুব কমই উৎসব পালন করা হয়েছে। রাজধানী কাঠমান্ডুতে রথযাত্রা হয়তো বাতিল করা হয়েছে, না হয় খুব কম মানুষের উপস্থিতিতে পালিত হয়েছে। এই উৎসবে সাধারণত মানুষের ঢল নামে। গত মাসে বৃষ্টির দেবতার উদ্দেশে রথযাত্রা হয়।

একে বলা হয় ইন্দ্রযাত্রা। সরকারি নির্দেশ অমান্য করে এতে অংশ নেন বিপুলসংখ্যক ক্ষিপ্ত মানুষ। এ সময় সেখানে সংঘর্ষ হয়। পরে ওই ইন্দ্রযাত্রা পালিত হয় খুবই সীমিত আকারে, পুলিশের উপস্থিতিতে।

রাতো মাছিন্দ্রনাথ যাত্রায় নেতৃত্ব দিয়েছেন প্রধান পুরোহিত কপিল বজরাচার্য্য। এই অনুষ্ঠান পালিত হয় কৃষির দেবতার সম্মানে। এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, ‘ধর্মীয় অনুষ্ঠানকে সীমাবদ্ধ করা অত্যন্ত দায়িত্বহীনের কাজ। আমার পরিবার শতাব্দীর পর শতাব্দী ধরে এই উৎসব পালন করে আসছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন