ইভিএম বাংলাদেশের জন্য উপযোগী নয়
jugantor
ইভিএম বাংলাদেশের জন্য উপযোগী নয়
-মির্জা ফখরুল

  ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি  

২৯ ডিসেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ বাংলাদেশের জন্য উপযোগী নয়। স্থানীয় পর্যায় এই পদ্ধতি নিয়ে যাওয়ার পেছনে বর্তমান সরকারের একটি হীন উদ্দেশ্যে কাজ করছে। সোমবার সন্ধ্যায় ঠাকুরগাঁও শহরের তাঁতীপাড়ায় নিজ বাড়িতে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, যে সব দেশে ইভিএম পদ্ধতি চালু আছে, সেখানে ভোট দেয়ার পর একটা ‘রিসিপট’ কাগজ দেয়া হয়। কিন্তু আমাদের দেশে সেটা নেই। ভোট চুরির যথেষ্ট সুযোগ রয়ে গেছে।

তিনি বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনের এ মুহূর্তেই পদত্যাগ করা উচিত। কারণ বিশিষ্ট নাগরিক ও বুদ্ধিজীবীরা মনে করেন এ নির্বাচন কমিশন দুর্নীতিগ্রস্ত। নির্র্বাচন কমিশন অযোগ্য ও ব্যর্থ। তাই তাদের এক মুহূর্ত থাকা উচিত না।’ প্রথম ধাপের পৌরসভা নির্বাচন নিয়ে তিনি বলেন, নির্বাচন নিয়ে জনগণের কোনোরকম আগ্রহ নেই। ইভিএম ব্যবহার করে ভোট দিলে ভোটারের একটা কাগজ পাওয়ার কথা সেটা পর্যন্ত দেয়া হয় না। সরকারি দলের প্রার্থীদের বিরুদ্ধে ভোট কেন্দ দখল, চুরির অভিযোগ এনে তিনি নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে পুনরায় নির্বাচন আয়োজনের দাবি জানান। জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমুর রহমান, সিনিয়র সহ-সভাপতি সুলতানুল ফেরদৌস নম্র চৌধুরী, ঠাকুরগাঁও পৌরসভা মেয়র ও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মির্জা ফয়সল আমীন, জেলা বিএনপির দফতর সম্পাদক মামুন উর রশিদ প্রমুখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

ইভিএম বাংলাদেশের জন্য উপযোগী নয়

-মির্জা ফখরুল
 ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি 
২৯ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ বাংলাদেশের জন্য উপযোগী নয়। স্থানীয় পর্যায় এই পদ্ধতি নিয়ে যাওয়ার পেছনে বর্তমান সরকারের একটি হীন উদ্দেশ্যে কাজ করছে। সোমবার সন্ধ্যায় ঠাকুরগাঁও শহরের তাঁতীপাড়ায় নিজ বাড়িতে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, যে সব দেশে ইভিএম পদ্ধতি চালু আছে, সেখানে ভোট দেয়ার পর একটা ‘রিসিপট’ কাগজ দেয়া হয়। কিন্তু আমাদের দেশে সেটা নেই। ভোট চুরির যথেষ্ট সুযোগ রয়ে গেছে।

তিনি বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনের এ মুহূর্তেই পদত্যাগ করা উচিত। কারণ বিশিষ্ট নাগরিক ও বুদ্ধিজীবীরা মনে করেন এ নির্বাচন কমিশন দুর্নীতিগ্রস্ত। নির্র্বাচন কমিশন অযোগ্য ও ব্যর্থ। তাই তাদের এক মুহূর্ত থাকা উচিত না।’ প্রথম ধাপের পৌরসভা নির্বাচন নিয়ে তিনি বলেন, নির্বাচন নিয়ে জনগণের কোনোরকম আগ্রহ নেই। ইভিএম ব্যবহার করে ভোট দিলে ভোটারের একটা কাগজ পাওয়ার কথা সেটা পর্যন্ত দেয়া হয় না। সরকারি দলের প্রার্থীদের বিরুদ্ধে ভোট কেন্দ দখল, চুরির অভিযোগ এনে তিনি নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে পুনরায় নির্বাচন আয়োজনের দাবি জানান। জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমুর রহমান, সিনিয়র সহ-সভাপতি সুলতানুল ফেরদৌস নম্র চৌধুরী, ঠাকুরগাঁও পৌরসভা মেয়র ও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মির্জা ফয়সল আমীন, জেলা বিএনপির দফতর সম্পাদক মামুন উর রশিদ প্রমুখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন