চরফ্যাশনে সন্ত্রাসী মুরাদের ২০ বছর কারাদণ্ড

 চরফ্যাশন (দক্ষিণ) প্রতিনিধি 
১৭ নভেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চরফ্যাশনের আহাম্মদপুর ইউনিয়নের শীর্ষ সন্ত্রাসী ১৮ মামলার পলাতক আসামি সন্ত্রাসী মুরাদ হোসেনকে ২০ বছর ৪ মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালত। একইসঙ্গে তার ৮ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে তিন বছর আট মাসের কারাদণ্ডাদেশ দেয়া হয়েছে। সোমবার অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. নুরুল ইসলাম এই দণ্ডাদেশ দেন।

দণ্ডিত মুরাদ হোসেন আহাম্মদপুর ইউনিয়নের আবুল বাসার চাপরাশির ছেলে। মামলার অপর আসামি আজিজ ও লিটনের ৫ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। দণ্ডিত আজিজ একই এলাকার আকবর হোসেনের ছেলে এবং লিটন ওই এলাকার রফিকের ছেলে। মামলার আরেক আসামি ফিরোজকে খালাস দেয়া হয়েছে। অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালত সূত্রে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে প্রকাশ, ২০১৫ সালের ৪ মার্চ রাতে ফরিদাবাদ বাদশা মিয়ার বাড়ি থেকে নিজ বাড়ি যাওয়ার পথে নুরাবাদ ৫নং ওয়ার্ডের গনি ডাক্তার বাড়ির সামনে গেলে আসামি সন্ত্রাসী মুরাদ অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে মামলার বাদী মো. আবুল হোসেনকে অবরুদ্ধ করে ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। এ ঘটনায় আবুল হোসেন বাদী হয়ে ২০১৫ সালের ১৩ মার্চ মুরাদ হোসেন, লিটন, আজিজ ও ফিরোজকে আসামি করে চরফ্যাশন থানায় জিআর ৫৭/১৫(চর) মামলা করেন।

জানা গেছে, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহসভাপতি ইয়াজ আল রিয়াদের ভাই শীর্ষ সন্ত্রাসী মুরাদ তার ছত্রছায়ায় থেকে চরফ্যাশন উপজেলার বিভিন্ন থানা এলাকায় মাদক, চাঁদাবাজি, ডাকাতি, প্রতারণা, ধর্ষণসহ নানা অপরাধের সঙ্গে জড়িত। তার বিরুদ্ধে চরফ্যাশন উপজেলার বিভিন্ন থানায় করা ১৭টি মামলা বিচারাধীন। এদিকে মামলার রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন বাদী আবুল হোসেনসহ এলাকাবাসী। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এএম আমিনুল ইসলাম সরমান জানান, আলোচিত শীর্ষ সন্ত্রাসী মুরাদের বিরুদ্ধে সন্তোষজনক রায় দিয়েছেন বিচারক।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন