বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কুইজ

ফেসবুক লাইভে মোস্তাফা জব্বারের সারপ্রাইজ কল

 আইটি ডেস্ক 
১৭ ডিসেম্বর ২০২০, ১০:৫৪ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

‘হ্যালো আমি মোস্তাফা জব্বার বলছি, ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী। শেখ মুজিব কুইজ থেকে।’ ১৫ ডিসেম্বর, মঙ্গলবার রাত ৯টায় এমন ফোন পেয়ে আবারও পরিচয় জানতে চেয়ে দ্বিতীয়বার জিজ্ঞাসা করেন যশোরের খায়রুজ্জামান। কয়েক সেকেন্ড স্তব্ধ থাকার পর বিশ্বাস করেন যে তিনি ঠিক শুনেছেন। 

এরপর মন্ত্রী জানান, খায়রুজ্জামান জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কুইজের ‘শেয়ার করেও জিতুন’ এর দ্বিতীয় সপ্তাহের ‘লাইভ লটারি’র বিজয়ী। শুধু খায়রুজ্জামান নয়, মঙ্গলবার রাত ৯টা থেকে সাড়ে ১০টা পর্যন্ত তার মতো ভাগ্যবান মোট ৭ জন মন্ত্রীর ফোন কল পেয়েছেন। মন্ত্রী নিজ মুখে তাদের বিজয়ী হিসেবে ঘোষণা করেন। এ সব কিছুই হয়েছে ফেসবুক লাইভে।
  
এদিন প্রিয়.কমের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) জাকারিয়া স্বপনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানটি (https://fb.watch/2qfumOvIV1/) সরাসরি সম্প্রচারিত হয় প্রতিষ্ঠানটির ফেসবুক পেজে। বিজয়ীদের সঙ্গে কথোপকথনে শেখ মুজিব কুইজে অংশ নেওয়ার কারণ এবং কেমন লাগছে তা জানতে চান মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। 

বিজয়ীরা জানান, বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে তাদের অনেক কিছুই অজানা ছিল। মুজিব কুইজের এই আয়োজন তাদের জানার এই পরিধি আরও বৃদ্ধি করেছে। ‘শেয়ার করেও জিতুন’ এর দ্বিতীয় সপ্তাহে বিজয়ী হন যশোরের খায়রুজ্জামান, গাইবান্ধার আসমা আক্তার মিনু, কুড়িগ্রামের মীনা বেগম, বাগেরহাটের চিন্ময় দত্ত, ঢাকার মিরপুরের আল-আমিন বেলাল, যাত্রাবাড়ী থেকে হৃদয় এবং ঝিনাইদহ থেকে শিবলুর রহমান।

গাইবান্ধার বিজয়ী আসমা আক্তার বলেন, ‘আমি অনেক অবাক হয়েছি। মন্ত্রীর ফোন পেয়ে আমি ভেবেছিলাম আমাকে মনে হয় ভুল করে ফোন দিয়েছে। কারণ ১৪ ডিসেম্বর কুইজের বিজয়ীদের তালিকায় আমার নাম ছিল না। পড়ে জানতে পারলাম ‘শেয়ার করেও জিতুন’ সেগমেন্টের বিজয়ী আমি।’ 

এদিকে বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো এত বড় আকারের কুইজ আয়োজনের বিষয়ে মন্ত্রী উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন এবং স্বাধীনতা লাভের সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপনে এমন আয়োজনের আশা প্রকাশ করেন। অনুষ্ঠান শেষে মন্ত্রী তার বক্তব্যে বলেন, ‘বাংলাদেশের বর্তমান প্রেক্ষিতে সাংস্কৃতিক বা রাজনৈতিক আন্দোলন করা উচিত যে বাংলাদেশকে জন্মের ঠিকানায় প্রতিষ্ঠিত করা। বঙ্গবন্ধু যে বাংলাদেশ তৈরি করেছেন সেই বাংলাদেশকে জনগণের বাংলাদেশ হিসেবে রূপান্তরিত করা।’

উল্লেখ্য, প্রতিদিনের কুইজের বিজয়ীর পাশাপাশি কুইজটি যারা ফেসবুকে শেয়ার করছেন, তাদেরকে নিয়ে প্রতি সপ্তাহের শেষে ফেসবুক লাইভে লটারি করে ৭ জন বিজয়ী নির্বাচিত করা হয়। গত ১০ ডিসেম্বর ফেসবুক লাইভে প্রথম সপ্তাহের (১ ডিসেম্বর - ৭ ডিসেম্বর) বিজয়ীদের নির্বাচিত করা হয়। প্রথম সপ্তাহের বিজয়ীরা প্রত্যেকেই পেয়েছেন জেবিএল ৭৫০বিটি (নয়েজ ক্যানসেলেশন) হেডফোন। 

যারা প্রতিদিনের কুইজ বা কুইজ সংশ্লিষ্ট যেকোনো কিছু ফেসবুকে শেয়ার করবেন, তাদেরকে নিয়েই সপ্তাহ শেষে এ লটারি হবে। বিজয়ীদের জন্য একেক সপ্তাহে থাকবে একেক ধরণের আকর্ষণীয় উপহার। 
দ্বিতীয় সপ্তাহের বিজয়ীরা প্রত্যেকে পাবেন একটি করে স্মার্টফোন। 

কুইজে অংশ নিতে https://mujib100.gov.bd অথবা https://quiz.priyo.com ওয়েবসাইট অথবা প্রিয় অ্যাপ (ডাউনলোড লিংক https://dl.priyo.com) এর যেকোনো একটি মাধ্যমে নিবন্ধন করে অংশ নিতে হবে। একজন প্রতিযোগী একটি আইডি দিয়ে প্রতিটি কুইজে একবার অংশগ্রহণ করতে পারবেন। প্রত্যেক প্রতিযোগীকে নাম, ঠিকানা, ছবি, ফোন নাম্বার, ইমেইল বা সোশ্যাল মিডিয়া আইডি ব্যবহার করতে হবে, যা বিজয়ীদের ক্ষেত্রে তাদের জাতীয় পরিচয়পত্র অথবা জন্ম নিবন্ধন সনদের সঙ্গে যাচাই করা হবে। 

একজন প্রতিযোগীকে একবার নিবন্ধন করলেই চলবে। পূর্বে নিবন্ধন করে থাকলে নতুন করে নিবন্ধনের প্রয়োজন নেই। প্রতিযোগিতায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন ও কর্মের ওপর এমসিকিউ পদ্ধতিতে প্রশ্ন থাকছে। প্রতিদিন একটি নতুন কুইজ দেওয়া হয় এবং কুইজের মেয়াদ ২৪ ঘণ্টা (০০:০১ মিনিট হতে ২৩:৫৯ মিনিট পর্যন্ত)। 

প্রতিদিন সঠিক উত্তরদাতাদের মধ্যে থেকে লটারির মাধ্যমে ১০০ জন বিজয়ীর সকলে পাবেন ১০০ জিবি করে মোবাইল ডাটা এবং তাদের মধ্যে প্রথম ৫ জন পাবেন স্মার্টফোন। এ ছাড়া পুরো প্রতিযোগিতায় গ্র্যান্ড প্রাইজ হিসেবে থাকবে মোট ১০০টি ল্যাপটপ। কুইজ প্রতিযোগিতা শেষ হবে ২০২১ সালের ১০ মার্চ। 

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন