কাটাখালীর পৌর নির্বাচন

ইভিএম ছিনতাইয়ের ঘটনায় মামলা প্রিসাইডিং অফিসারের

 রাজশাহী ব্যুরো 
২৯ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:০১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
পৌর নির্বাচন
ফাইল ছবি

রাজশাহীর কাটাখালী পৌর নির্বাচনে ইভিএম ছিনতাইসহ সংঘর্ষে চার পুলিশ আহতের ঘটনায় ১৭ জনের নাম উল্লেখ ও ১৭০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে একটি মামলা করা হয়েছে।

সোমবার রাতে প্রিসাইডিং অফিসার অভিষেক বসাক বাদী হয়ে কাটাখালী থানায় মামলাটি করেন।

কাটাখালী থানার ওসি জিল্লুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, আমরা অভিযান অব্যাহত রেখেছি।

এ ছাড়া রাতেই ইভিএম উদ্ধার করা হয়েছে। আহত পুলিশদের চিকিৎসার জন্য রামেক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। হামলাকারী কাউন্সিলর প্রার্থী আবদুল লতিফ ও তার সমর্থকদের বিরুদ্ধে আইনানুগ পদক্ষেপ গ্রহণের প্রক্রিয়া চলছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সোমবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে শ্যামপুর কেন্দ্রের ফল ঘোষণা করা হয়। ৮নং ওয়ার্ডভুক্ত শ্যামপুর কেন্দ্রে আবদুল মজিদ ২৫ ভোট বেশি পেয়ে বিজয়ী হন। এ সময় পরাজিত কাউন্সিলর প্রার্থী আবদুল লতিফের সমর্থকরা লাঠিসোটা নিয়ে কেন্দ্রে প্রবেশ করে দুটি ইভিএম ছিনতাই করে নিয়ে যায়।

এ সময় পুলিশ ও বিজয়ী কাউন্সিলর মজিদ সমর্থকদের সঙ্গে সংঘর্ষ বাধে। এতে লতিফ সমর্থকরা বেশ কয়েকটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করে। তারা ঘটনাস্থলে থাকা পুলিশের একটি পিকআপ ভাঙচুর করে। পরে পুলিশ ছিনতাই হওয়া ইভিএম দুটি উদ্ধার করে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন