শেরপুর থেকে দূরপাল্লার বাস চলাচল শুরু হয়নি, যাত্রীদের দুর্ভোগ চরমে

 শেরপুর প্রতিনিধি 
২৫ ডিসেম্বর ২০২০, ০৭:৩৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বাস আটকে শ্রমিকদের মারধরের ঘটনায় শেরপুর থেকে রাজধানী ঢাকাসহ দূরপাল্লার সব ধরনের বাস চলাচল শুক্রবারও বন্ধ রয়েছে।
বাস আটকে শ্রমিকদের মারধরের ঘটনায় শেরপুর থেকে রাজধানী ঢাকাসহ দূরপাল্লার সব ধরনের বাস চলাচল শুক্রবারও বন্ধ রয়েছে।

বাস আটকে শ্রমিকদের মারধরের ঘটনায় শেরপুর থেকে রাজধানী ঢাকাসহ দূরপাল্লার সব ধরনের বাস চলাচল শুক্রবারও বন্ধ রয়েছে। গত বুধবার রাত থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে বাস-কোচ মালিকরা। এতে ঢাকাসহ বিভিন্ন স্থানে চলাচলকারী যাত্রীরা চরম দুর্ভোগে পড়েছেন। 

শুক্রবার সকালে শহরের বাস টার্মিনালসহ বিভিন্ন স্থানে সরেজমিন দেখা যায়, ঢাকাসহ দূরপাল্লার বিভিন্ন বাসযাত্রীরা সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও মাইক্রোবাসসহ বিভিন্ন যানবাহনে করে জামালপুর ও ময়মনসিংহ হয়ে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে যাতায়াত করছেন। ফলে যাত্রীদের গন্তব্যে পৌঁছতে সময় লাগছে বেশি এবং অনেক বাড়তি খরচও হচ্ছে।  

শেরপুর বাস মালিক সমিতির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক সুজিত ঘোষ জানান,ময়মনসিংহ বাস কোচ মালিক সমিতির একটি বাস গত মঙ্গলবার ও বুধবার শেরপুর শহরের নবীনগর বাস টার্মিনালে আটকে রেখে কতিপয় শ্রমিক ওই বাসের ড্রাইভার ও হেলপারকে লাঞ্ছিত করে। এ ঘটনার পর  বুধবার বিকালে শেরপুর থেকে ঢাকাগামী বাসগুলোকে ময়মনসিংহে আটকে দেয় সেখানকার শ্রমিকরা। ফলে শেরপুরের বাসগুলো ফিরে আসতে বাধ্য হয়।

শেরপুর ও ময়মনসিংহের ওই দুটি ঘটনার সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে ২৩ ডিসেম্বর বুধবার রাত থেকে শেরপুর থেকে ঢাকাসহ সব ধরনের দূরপাল্লার বাস চলাচল অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দিয়েছে বাস-কোচ মালিকরা।

এ বিষয়ে জেলা বাস-কোচ মালিক  সমিতির সভাপতি ছানোয়ার হোসেন ছানু জানান,বহিরাগত কিছু লোক আমাদের বাস চলাচলে সমস্যার সৃষ্টি করছে। এ সমস্যার সমাধান হলেই আমরা বাস চালাব। তবে বাস আমরা বন্ধ করিনি। বাস মালিকরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। তাই তারা ঢাকাসহ দূরপাল্লার বাসগুলো চালাতে চাচ্ছেন না।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন