স্ত্রীর শাড়িতে স্বামীর ঝুলন্ত লাশ

 তালতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি 
০৬ নভেম্বর ২০২০, ০৬:৫০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বরগুনার তালতলীতে শ্বশুরবাড়ির তেঁতুলগাছ থেকে স্ত্রীর শাড়িতে স্বামী শাহাদাত হোসেনের (৩৫) ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার রাত ১২টার দিকে নিহতের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত শাহাদাত উপজেলার ছোট ভাইজোড়া এলাকার মৃত নয়া মুন্সীর ছেলে।

নিহতের পরিবার ও স্থানীয়রা জানান, উপজেলার বড়বগী ইউনিয়নের ভাইজোড়া এলাকার শাহাদাতের সঙ্গে একই এলাকার আবদুল ছত্তারের মেয়ে লাকীর বিয়ে হয় ২০ বছর আগে। বিয়ের পর থেকেই শাহাদাত তার শ্বশুরবাড়িতে বসবাস করেন।

নিহতের পরিবারের দাবি, বিয়ের পর থেকে ওই এলাকার খোরশেদ আলীর ছেলে হাসান আলীর সঙ্গে পরকীয়ায় জড়ান স্ত্রী লাকি। এ নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কলহের সৃষ্টি হয়। এ নিয়ে স্থানীয়ভাবে সালিশ-বৈঠক হয়েছে। কিন্তু লাকি তার পরকীয়া অবৈধ সম্পর্ক বন্ধ করেনি। এমনকি লাকির স্বামী শাহাদাতকে পরকীয়া হাসান আলীকে দিয়ে মারধর করিয়েছে।

এরই জের ধরে গত সোমবার বরগুনার একটি কাজি অফিসে গিয়ে লাকি তার স্বামী শাহাদাতকে তালাক দেয়। শাহাদাত বরিশালে রিকশা চালাতেন। পরে তালাকের বিষয়টি মোবাইল ফোনে স্থানীয়রা তাকে জানান। 

শাহাদাত বরিশাল থেকে তার শ্বশুরবাড়িতে গিয়ে দেখেন তার স্ত্রী বাড়িতে নেই। পরে তার শ্বশুরবাড়ির লোকজনদের কাছে জানতে চাইলে তারা বলেন- তোমার স্ত্রী তোমাকে তালাক দিয়েছে। পরে রাত ১০টার দিকে তেঁতুলগাছের সঙ্গে স্ত্রীর শাড়ি দিয়ে গলায় ফাঁস দেয়া লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। 

নিহতের বড়ভাই কালামের দাবি, শাহাদাতের স্ত্রীর সঙ্গে হাসান আলীর অবৈধ সম্পর্ক ছিল। এতে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে পারিবারিক ঝামেলা বাড়তে থাকে। এ নিয়ে সালিশ-বৈঠক হয়েছে।

এ বিষয়ে নিহতের স্ত্রী লাকির সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। লাকির সঙ্গে পরকীয়ায় অভিযুক্ত সেই হাসান আলীর ফোনও বন্ধ পাওয়া যায়।

তালতলী থানার ওসি মো. কামরুজ্জামান মিয়া বলেন, নিহতের লাশ উদ্ধার করে বরগুনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন