ভিমরুলের আক্রমণ থেকে বাঁচতে মৌচাকে মলের প্রলেপ!
jugantor
ভিমরুলের আক্রমণ থেকে বাঁচতে মৌচাকে মলের প্রলেপ!

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৫ ডিসেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মৌমাছির জাতশত্রু ভিমরুল। অপেক্ষাকৃত বড় আকৃতির ভিমরুল বা ভ্রমর কিংবা তাদের স্বজাতি এশীয় ভিমরুল কয়েক ঘণ্টার মধ্যে একটি মৌমাছির চাক পুরোপুরি নষ্ট করে দিতে পারে।
প্রতীকী ছবি

মৌমাছির জাতশত্রু ভিমরুল। অপেক্ষাকৃত বড় আকৃতির ভিমরুল বা ভ্রমর কিংবা তাদের স্বজাতি এশীয় ভিমরুল কয়েক ঘণ্টার মধ্যে একটি মৌমাছির চাক পুরোপুরি নষ্ট করে দিতে পারে।

উত্তর আমেরিকা ও ইউরোপে মৌমাছি এসব ভিমরুলের আক্রমণ থেকে নিজেদের ডেরা বাঁচানোর কোনো উপায়ই বের করতে পারেনি।

কিন্তু পূর্ব-এশিয়াতে ভিমরুলদের পক্ষে মৌচাকে আক্রমণের কাজটি অতটা সহজ নয়। সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে, এ অঞ্চলে মৌমাছিরা নিজেদের অস্তিত্ব রক্ষা করতে এক নতুন কৌশল বের করেছে। আর তা হল, নিজেদের চাকে ঢোকার প্রবেশ পথে মল দিয়ে ঢেকে দেয় তারা।

নিউইয়র্ক টাইমসের এক প্রতিবেদনে অদ্ভুত তথ্য উঠে এসেছে। পিএলওএস জার্নালে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে গবেষকরা জানান, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় মৌমাছি নিজেদের চাকের বাইরে প্রবেশপথে পাখি ও মহিষের মল লেপে রাখে।

মৌচাকের সদস্যরা উড়ে উড়ে বিভিন্ন জায়গা থেকে এই মল মুখে করে নিয়ে আসে। তারপর ওরা এগুলো চাকের বাইরের কয়েকটি জায়গায় লাগিয়ে দেয়।

 

ভিমরুলের আক্রমণ থেকে বাঁচতে মৌচাকে মলের প্রলেপ!

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৫ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
মৌমাছির জাতশত্রু ভিমরুল। অপেক্ষাকৃত বড় আকৃতির ভিমরুল বা ভ্রমর কিংবা তাদের স্বজাতি এশীয় ভিমরুল কয়েক ঘণ্টার মধ্যে একটি মৌমাছির চাক পুরোপুরি নষ্ট করে দিতে পারে।
প্রতীকী ছবি

মৌমাছির জাতশত্রু ভিমরুল। অপেক্ষাকৃত বড় আকৃতির ভিমরুল বা ভ্রমর কিংবা তাদের স্বজাতি এশীয় ভিমরুল কয়েক ঘণ্টার মধ্যে একটি মৌমাছির চাক পুরোপুরি নষ্ট করে দিতে পারে।

উত্তর আমেরিকা ও ইউরোপে মৌমাছি এসব ভিমরুলের আক্রমণ থেকে নিজেদের ডেরা বাঁচানোর কোনো উপায়ই বের করতে পারেনি।

কিন্তু পূর্ব-এশিয়াতে ভিমরুলদের পক্ষে মৌচাকে আক্রমণের কাজটি অতটা সহজ নয়। সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে, এ অঞ্চলে মৌমাছিরা নিজেদের অস্তিত্ব রক্ষা করতে এক নতুন কৌশল বের করেছে। আর তা হল, নিজেদের চাকে ঢোকার প্রবেশ পথে মল দিয়ে ঢেকে দেয় তারা।

নিউইয়র্ক টাইমসের এক প্রতিবেদনে অদ্ভুত তথ্য উঠে এসেছে। পিএলওএস জার্নালে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে গবেষকরা জানান, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় মৌমাছি নিজেদের চাকের বাইরে প্রবেশপথে পাখি ও মহিষের মল লেপে রাখে।

মৌচাকের সদস্যরা উড়ে উড়ে বিভিন্ন জায়গা থেকে এই মল মুখে করে নিয়ে আসে। তারপর ওরা এগুলো চাকের বাইরের কয়েকটি জায়গায় লাগিয়ে দেয়।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন