সুস্থতায় মধু
jugantor
সুস্থতায় মধু

  ঘরেবাইরে ডেস্ক  

২৯ ডিসেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ছবি সংগৃহীত
ছবি সংগৃহীত

নিজেকে সুস্থ রাখতে মধু হতে পারে অন্যতম একটি মাধ্যম। যারা ডায়েট করার চিন্তা-ভাবনা করছেন, তাদের জন্য মধু হতে পারে চিনির বিকল্প। এছাড়া মধু কেবল ওজন কমাতেই সহায়তা করে না; পাশাপাশি ব্যথা নিরাময়ে কিংবা হজম শক্তি বাড়াতেও মধুর বিকল্প নেই।

তাই সেই আদিকাল থেকেই মধু চিকিৎসা ক্ষেত্রের নানা অংশে এমনকি খাবারের তালিকায় প্রতিদিনের অংশ হিসেবে ছিল বেশ পরিচিত। এছাড়া মধুতে রয়েছে গ্লুকোজ, মন্টোজ, খনিজ লবণ ও অ্যামাইনো এসিড থেকে শুরু করে চর্বি এমনকি প্রোটিন, যা আপনার শরীরে শক্তি জোগাতে সহায়তা করে। তবে বর্তমান এ সময়ে খাঁটি মধু নির্বাচন করাই সবচেয়ে কঠিন বিষয়।

মধুর ক্ষেত্রে সবচেয়ে সেরা মানুকা মধু। অন্যদিকে সরিষা ফুল, লিচু, কালিজিরা, গুজি তিল কিংবা তৃষি থেকে প্রাপ্ত মধুর গুণাগুণও প্রায় মানুকা মধুর কাছাকাছি। অন্যদিকে খাঁটি মধু চেনার ক্ষেত্রে মধুর থেকে কোনো ধরনের কটু গন্ধ না পেলে, দীর্ঘদিন মধু রেখে দিলেও তা নষ্ট না হলে বুঝে নিন- মধুর বৈশিষ্ট্য অক্ষুণ্ন্ন রয়েছে এবং এ মধুতে কোনো ধরনের ভেজাল নেই।

কারণ মধু নিজেই প্রিজারভেটিভ গুণাগুণ সম্পন্ন। এছাড়া মধুর এই নানা ধরনের গুণের জন্য সব দেশের মানুষের কাছে মধুর গ্রহণযোগ্যতা সবচেয়ে বেশি। গরম পানির সঙ্গে মধু মিশিয়ে সকালে ঘুম থেকে ওঠে পান করা কিংবা সকালের নাস্তায় মধুর উপস্থিতি তাই সুস্থতার মূলমন্ত্র অনেকের-ই কাছে। অন্যদিকে ঠাণ্ডা, জ্বর কিংবা কাশি হলে, মধু দ্রুত আরোগ্য লাভে বেশ কার্যকর।

অন্যদিকে প্রতিদিনের খাবারের তালিকায় থাকা মধু আপনাকে রোগবালাই থেকে যেমন দূরে রাখবে, তেমনি শরীরে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা সৃষ্টিতে সহায়তা করবে। পাশাপাশি যাদের শ্বাসকষ্টের সমস্যা আছে, তারা মধু কালিজিরা, আদা, গোলমরিচ সমপরিমাণ মিশিয়ে খেতে পারেন।

এতে দ্রুত আরোগ্য লাভ সঙ্গে তাৎক্ষণিক বেশ আরাম মিলবে। অন্যদিকে রূপচর্চার ক্ষেত্রেও যুগ যুগ ধরে মধুর তৈরি প্যাক ত্বকের যত্নে সুপরিচিত। ডিমের সাদা অংশ, মধু, অ্যালোভেরা জেল মিশিয়ে চুলে ব্যবহার করলে চুল যেমন দ্রুত বৃদ্ধি পায়, তেমনি চুলের গোড়া মজবুত করতেও বেশ উপকারী।

এছাড়া আপনার ত্বক রুক্ষ হলে ত্বকে মধুর তৈরি প্যাক আপনার ত্বক উজ্জ্বল করতে সহায়তা করবে। আর এভাবে প্রতিদিনের খাবারের তালিকায় থাকা মধু আপনাকে যেমন সুস্থ রাখবে, তেমনি নানা ধরনের রোগবালাই থেকেও রাখবে মুক্ত আর আপনি থাকবেন ফিট আর সুস্থ।

 

সুস্থতায় মধু

 ঘরেবাইরে ডেস্ক 
২৯ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
ছবি সংগৃহীত
ছবি সংগৃহীত

নিজেকে সুস্থ রাখতে মধু হতে পারে অন্যতম একটি মাধ্যম। যারা ডায়েট করার চিন্তা-ভাবনা করছেন, তাদের জন্য মধু হতে পারে চিনির বিকল্প। এছাড়া মধু কেবল ওজন কমাতেই সহায়তা করে না; পাশাপাশি ব্যথা নিরাময়ে কিংবা হজম শক্তি বাড়াতেও মধুর বিকল্প নেই।

তাই সেই আদিকাল থেকেই মধু চিকিৎসা ক্ষেত্রের নানা অংশে এমনকি খাবারের তালিকায় প্রতিদিনের অংশ হিসেবে ছিল বেশ পরিচিত। এছাড়া মধুতে রয়েছে গ্লুকোজ, মন্টোজ, খনিজ লবণ ও অ্যামাইনো এসিড থেকে শুরু করে চর্বি এমনকি প্রোটিন, যা আপনার শরীরে শক্তি জোগাতে সহায়তা করে। তবে বর্তমান এ সময়ে খাঁটি মধু নির্বাচন করাই সবচেয়ে কঠিন বিষয়।

মধুর ক্ষেত্রে সবচেয়ে সেরা মানুকা মধু। অন্যদিকে সরিষা ফুল, লিচু, কালিজিরা, গুজি তিল কিংবা তৃষি থেকে প্রাপ্ত মধুর গুণাগুণও প্রায় মানুকা মধুর কাছাকাছি। অন্যদিকে খাঁটি মধু চেনার ক্ষেত্রে মধুর থেকে কোনো ধরনের কটু গন্ধ না পেলে, দীর্ঘদিন মধু রেখে দিলেও তা নষ্ট না হলে বুঝে নিন- মধুর বৈশিষ্ট্য অক্ষুণ্ন্ন রয়েছে এবং এ মধুতে কোনো ধরনের ভেজাল নেই।

কারণ মধু নিজেই প্রিজারভেটিভ গুণাগুণ সম্পন্ন। এছাড়া মধুর এই নানা ধরনের গুণের জন্য সব দেশের মানুষের কাছে মধুর গ্রহণযোগ্যতা সবচেয়ে বেশি। গরম পানির সঙ্গে মধু মিশিয়ে সকালে ঘুম থেকে ওঠে পান করা কিংবা সকালের নাস্তায় মধুর উপস্থিতি তাই সুস্থতার মূলমন্ত্র অনেকের-ই কাছে। অন্যদিকে ঠাণ্ডা, জ্বর কিংবা কাশি হলে, মধু দ্রুত আরোগ্য লাভে বেশ কার্যকর।

অন্যদিকে প্রতিদিনের খাবারের তালিকায় থাকা মধু আপনাকে রোগবালাই থেকে যেমন দূরে রাখবে, তেমনি শরীরে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা সৃষ্টিতে সহায়তা করবে। পাশাপাশি যাদের শ্বাসকষ্টের সমস্যা আছে, তারা মধু কালিজিরা, আদা, গোলমরিচ সমপরিমাণ মিশিয়ে খেতে পারেন।

এতে দ্রুত আরোগ্য লাভ সঙ্গে তাৎক্ষণিক বেশ আরাম মিলবে। অন্যদিকে রূপচর্চার ক্ষেত্রেও যুগ যুগ ধরে মধুর তৈরি প্যাক ত্বকের যত্নে সুপরিচিত। ডিমের সাদা অংশ, মধু, অ্যালোভেরা জেল মিশিয়ে চুলে ব্যবহার করলে চুল যেমন দ্রুত বৃদ্ধি পায়, তেমনি চুলের গোড়া মজবুত করতেও বেশ উপকারী।

এছাড়া আপনার ত্বক রুক্ষ হলে ত্বকে মধুর তৈরি প্যাক আপনার ত্বক উজ্জ্বল করতে সহায়তা করবে। আর এভাবে প্রতিদিনের খাবারের তালিকায় থাকা মধু আপনাকে যেমন সুস্থ রাখবে, তেমনি নানা ধরনের রোগবালাই থেকেও রাখবে মুক্ত আর আপনি থাকবেন ফিট আর সুস্থ।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন