দায়বদ্ধতা থেকে আমি সমাজসেবা করি
jugantor
হ্যালো...
দায়বদ্ধতা থেকে আমি সমাজসেবা করি
‘শ্যামবাজারের সাত্তার’ কিংবা ‘ময়মনসিংহের তোতা’- এ দু’চরিত্রের জন্য বেশ জনপ্রিয় অভিনেতা ও নির্মাতা হাসান জাহাঙ্গীর। এ সময়ে এসে পরিচালনার চেয়ে অভিনয় নিয়েই ব্যস্ত। বর্তমান ব্যস্ততা ও সমসাময়িক প্রসঙ্গ নিয়ে আজকের ‘হ্যালো...’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি

  হাসান সাইদুল  

২৯ ডিসেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ছবি সংগৃহীত
ছবি সংগৃহীত

* করোনার মধ্যেও শুটিং করছেন। সচেতনতা কতটা অবলম্বন করছেন?

** আমরা অবশ্যই নিজেকে ভালোবাসি। মানুষ নিজের চেয়ে বেশি কেউ অন্যকে ভালোবাসে বলে আমি মনে করি না। সে দিক বিবেচনা তো আছেই। করোনা সংক্রমণ বাড়ছে। তবে আমি সচেতনতা অবলম্বন করেই শুটিং করছি।

* ১ জানুয়ারি আপনার জন্মদিন। অনেকেই এ তারিখটি সার্টিফিকেটে কমন জন্মদিন হিসেবে উল্লেখ করে। আপনার ক্ষেত্রে তেমনটি নয় তো?

** সার্টিফিকেট কিংবা বাস্তব যাই হোক না কেন, আমার একটাই জন্মদিন। সেটি ১ জানুয়ারি। এ দিনেই আমি পৃথিবীর আলো দেখেছি।

* এবারের দিনটি কীভাবে উদযাপন করবেন?

** জন্মদিনকে আমি আলাদা করে দেখি না। প্রতিদিনই বাঁচি। কাজ করি। আড্ডা দিই। তবে এ দিনটা এসে আমাকে জানান দেয়, বয়স বাড়ছে। মৃত্যু ডাকছে। যে কোনো দিন মৃত্যু স্বাগতম জানাবে। তাই বরাবরের মতো এবারও বিশেষ কোনো আয়োজন নেই। দিনের শুরু আমি নামাজ দিয়েই করি। জন্মদিনে সকালের নাস্তা আর দুপুরের খাবারটা এতিমখানায় করব। অসহায়দের শীতবস্ত্র উপহার দেব।

* সমাজসেবামূলক কাজেও আপনাকে দেখা যায়, কিন্তু প্রচারের আলোয় তা থাকে না। কারণ কী?

** সমাজসেবা আমি দায়বদ্ধতা থেকে করি। আল্লাহ আমাকে মানুষের জন্য কিছু করার তাওফিক দিয়েছেন। নিজের সাধ্যমতো সেটিই করার চেষ্টা করি। এসব কাজ থেকে মানুষ উপকৃত হয় ও দোয়া করে- এটিই আমার ভালোলাগা। এই যেমন লকডাউনের মধ্যে আগে আমার গ্রামের বাড়ির পাশে একটি মসজিদ নির্মাণের কাজ শুরু করেছি। এখন প্রায় শেষের পথে সেটি। এ মসজিদে মানুষ নামাজ পড়ছে। আমার জন্য দোয়া করছে। এর চেয়ে বেশি প্রাপ্তি আর কী হতে পারে?

* এসব কাজের অনুপ্রেরণা কোথা থেকে পেয়েছেন?

** আসলে আমি ছোটবেলা থেকেই ধর্মের প্রতি অনুরাগী। আমার পূর্ব-পুরুষরাও তেমন ছিলেন। আর এসব করতে আমারও ভালো লাগে খুব।

* বর্তমান ব্যস্ততা কী নিয়ে?

** প্রচারচলতি ধারাবাহিক নাটকগুলো নিয়ে ব্যস্ততা চলছে। একাধিক খণ্ডনাটকের কাজও করছি। এরই মধ্যে ঈদের কাজের প্রস্তুতিও নিচ্ছি। নতুন দুটি দীর্ঘ ধারাবাহিকের কাজ শিগগিরই শুরু করব। আর নতুন বছরেও কিছু চমক থাকবে!

* নতুন বছরের জন্য কী ধরনের কাজের পরিকল্পনা করেছেন?

** এখন প্রযুক্তির যুগ। সবাই মোবাইল ফোনে বিনোদন নেয়ার চেষ্টা করছেন। সে বিষয়টি মাথায় রেখে ‘টিভি এইস টুয়েন্টিফোর’ নামে একটি অনলাইন চ্যানেলের কাজ করছি। এইস এইস গ্রুপ প্রতিষ্ঠা করেছি। এতে বিল্ডার্স, ফার্মা ও কসমেটিক্সসহ নিত্যপণ্যের সহযোগী প্রতিষ্ঠান থাকবে। আশা করছি, নতুন বছরে শতাধিক লোকের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে পারব।

হ্যালো...

দায়বদ্ধতা থেকে আমি সমাজসেবা করি

‘শ্যামবাজারের সাত্তার’ কিংবা ‘ময়মনসিংহের তোতা’- এ দু’চরিত্রের জন্য বেশ জনপ্রিয় অভিনেতা ও নির্মাতা হাসান জাহাঙ্গীর। এ সময়ে এসে পরিচালনার চেয়ে অভিনয় নিয়েই ব্যস্ত। বর্তমান ব্যস্ততা ও সমসাময়িক প্রসঙ্গ নিয়ে আজকের ‘হ্যালো...’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি
 হাসান সাইদুল 
২৯ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
ছবি সংগৃহীত
ছবি সংগৃহীত

* করোনার মধ্যেও শুটিং করছেন। সচেতনতা কতটা অবলম্বন করছেন?

** আমরা অবশ্যই নিজেকে ভালোবাসি। মানুষ নিজের চেয়ে বেশি কেউ অন্যকে ভালোবাসে বলে আমি মনে করি না। সে দিক বিবেচনা তো আছেই। করোনা সংক্রমণ বাড়ছে। তবে আমি সচেতনতা অবলম্বন করেই শুটিং করছি।

* ১ জানুয়ারি আপনার জন্মদিন। অনেকেই এ তারিখটি সার্টিফিকেটে কমন জন্মদিন হিসেবে উল্লেখ করে। আপনার ক্ষেত্রে তেমনটি নয় তো?

** সার্টিফিকেট কিংবা বাস্তব যাই হোক না কেন, আমার একটাই জন্মদিন। সেটি ১ জানুয়ারি। এ দিনেই আমি পৃথিবীর আলো দেখেছি।

* এবারের দিনটি কীভাবে উদযাপন করবেন?

** জন্মদিনকে আমি আলাদা করে দেখি না। প্রতিদিনই বাঁচি। কাজ করি। আড্ডা দিই। তবে এ দিনটা এসে আমাকে জানান দেয়, বয়স বাড়ছে। মৃত্যু ডাকছে। যে কোনো দিন মৃত্যু স্বাগতম জানাবে। তাই বরাবরের মতো এবারও বিশেষ কোনো আয়োজন নেই। দিনের শুরু আমি নামাজ দিয়েই করি। জন্মদিনে সকালের নাস্তা আর দুপুরের খাবারটা এতিমখানায় করব। অসহায়দের শীতবস্ত্র উপহার দেব।

* সমাজসেবামূলক কাজেও আপনাকে দেখা যায়, কিন্তু প্রচারের আলোয় তা থাকে না। কারণ কী?

** সমাজসেবা আমি দায়বদ্ধতা থেকে করি। আল্লাহ আমাকে মানুষের জন্য কিছু করার তাওফিক দিয়েছেন। নিজের সাধ্যমতো সেটিই করার চেষ্টা করি। এসব কাজ থেকে মানুষ উপকৃত হয় ও দোয়া করে- এটিই আমার ভালোলাগা। এই যেমন লকডাউনের মধ্যে আগে আমার গ্রামের বাড়ির পাশে একটি মসজিদ নির্মাণের কাজ শুরু করেছি। এখন প্রায় শেষের পথে সেটি। এ মসজিদে মানুষ নামাজ পড়ছে। আমার জন্য দোয়া করছে। এর চেয়ে বেশি প্রাপ্তি আর কী হতে পারে?

* এসব কাজের অনুপ্রেরণা কোথা থেকে পেয়েছেন?

** আসলে আমি ছোটবেলা থেকেই ধর্মের প্রতি অনুরাগী। আমার পূর্ব-পুরুষরাও তেমন ছিলেন। আর এসব করতে আমারও ভালো লাগে খুব।

* বর্তমান ব্যস্ততা কী নিয়ে?

** প্রচারচলতি ধারাবাহিক নাটকগুলো নিয়ে ব্যস্ততা চলছে। একাধিক খণ্ডনাটকের কাজও করছি। এরই মধ্যে ঈদের কাজের প্রস্তুতিও নিচ্ছি। নতুন দুটি দীর্ঘ ধারাবাহিকের কাজ শিগগিরই শুরু করব। আর নতুন বছরেও কিছু চমক থাকবে!

* নতুন বছরের জন্য কী ধরনের কাজের পরিকল্পনা করেছেন?

** এখন প্রযুক্তির যুগ। সবাই মোবাইল ফোনে বিনোদন নেয়ার চেষ্টা করছেন। সে বিষয়টি মাথায় রেখে ‘টিভি এইস টুয়েন্টিফোর’ নামে একটি অনলাইন চ্যানেলের কাজ করছি। এইস এইস গ্রুপ প্রতিষ্ঠা করেছি। এতে বিল্ডার্স, ফার্মা ও কসমেটিক্সসহ নিত্যপণ্যের সহযোগী প্রতিষ্ঠান থাকবে। আশা করছি, নতুন বছরে শতাধিক লোকের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে পারব।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন